এবার নির্বাচনে প্রধান বিরোধী দল বি এন পি নাকি জাতীয় পার্টি

সঠিকভাবে হলে নির্বাচনে অংশ নেবো: জিএম কাদের

দেশে ‘সঠিকভাবে’ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে জাতীয় পার্টি তাতে অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের। 

তিনি বলেছেন, আমরা নির্বাচন প্রক্রিয়ার সাথেই আছি। কী হবে তা এখনো কেউ জানে না। যদি নির্বাচন হয়, তখন আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা ঘোষণা না দিয়ে চলে যাবো ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা নির্বাচন প্রক্রিয়ার সাথে আছি।

জিএম কাদের বলেন, আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। নির্বাচন যদি সঠিকভাবে হয় তবেই আমরা নির্বাচনে অংশ নেবো। যদি আমরা মনে করি সঠিকভাবে নির্বাচন হচ্ছে না তখন আমরা ঘোষণা দিয়েই নির্বাচন বর্জন করবো।’

‘ঘোষণাটা আমাদের তরফ থেকেই আসতে হবে। দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথেই আলোচনা করে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো।’

শনিবার দুপুরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানীর কার্যালয়ে নিজের লেখা ‘বাংলাদেশে গণতন্ত্র সোনার পাথরবাটি’ দ্বিতীয় খণ্ড ও ‘মিসেরিজ অব মিসকনসিভড ডেমোক্রেসি ভলিউম-টু’ এর প্রকাশনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিরোধীদলীয় উপনেতা বলেন, নির্বাচন নিয়ে কোনো একক সিদ্ধান্ত হবে না, প্রকাশ্যে ঘোষণা দেয়া হবে। গণমাধ্যমের সামনে ঘোষণা দেয়া হবে যে, এই কারণে আমরা নির্বাচন করছি বা করছি না।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সঙ্গী জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান বলেন, দেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী তো আমাদের লোক, আমরাই বানিয়েছি। তারা কোনো ভুল করলে অবশ্যই আমরা বলবো।

‘কথা বললেই শাস্তি পেতে হবে? সেজন্য আইন করা হবে? আমি ভুল বলতে পারি কিন্তু আমার বলার অধিকার তো আছে। আমরা যেনো কথা বলতে না পারি সেজন্য আইন করা হচ্ছে।’

কাদের বলেন, গণতন্ত্র না থাকলে কোনো প্রকল্প গণমুখী হয় না তার প্রমাণ হচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট। বিবিসির দেয়া তথ্যে জানা গেছে, চার হাজার কোটি টাকার বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রকল্প, বছরে আয় করছে একশ কোটি টাকা। ১৫ বছর হচ্ছে এটার লাইফ। এটা কি বাস্তবসম্মত হলো? তাহলে আবার বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২ প্রকল্পের জন্য চুক্তি কেন?

‘আবার, রুপপুর আণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়েও কথা আছে। ভারতে ২০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হয়েছে পাঁচ বিলিয়ন ডলারে। অথচ, একই কোম্পানির দুই হাজার ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে খরচ হয়েছে নাকি ১৬ বিলিয়ন ডলার। আমাদের দেশে ভারতের চেয়ে তিনগুণ বেশী খরচে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *