ভারতের সঙ্গে নির্বাচনের আলাপ হয়ে গেছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পররাষ্ট্র সচিবের ওটাতে নির্বাচন নিয়ে আলাপ হবে না। অন্যান্য খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে আলাপ হবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের আলাপতো হয়েই গেছে ওদের সাথে। এটাতো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী, তারা আলাপ করে ফেলেছেন।’

সম্প্রতি নয়া দিল্লিতে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছিলো। ওই বৈঠকে নয়া দিল্লি ওয়াশিংটনকে জানিয়ে দিয়েছে, নির্বাচন কীভাবে হবে তা বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। ভারতের এই অবস্থান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কোনো মন্তব্য করেনি। তবে বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যে ভারত একমত নয়, তা একরকম স্পষ্ট।

দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে কী ধরনের আলাপ হয়েছে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা চায়, আমরাও চাই এটা। শান্তি ও স্থিতিশীলতা তারা সেটা চায় এবং তারা চায় বাংলাদেশের যে গণতান্ত্রিক পদ্ধতি, প্রক্রিয়াটা আছে, সেটা সমুন্নত থাকুক। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে যাতে কোনো রকমের ভাটা না পড়ে।

তিনি বলেন, ভারত বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশ। সুতরাং তারা সবসময় গণতন্ত্রের পক্ষে।

দ্বিপক্ষীয় ফরেন অফিস কনসালটেশনের (এফওসি) জন্য চলতি সপ্তাহে ভারত সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের। পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের এই বৈঠকের ভারতীয় দলের নেতৃত্ব দেবেন দেশটির পররাষ্ট্র সচিব বিনয় কোয়াত্রা।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা অনেক দেশের সাথে ফরেন অফিস কনসালটেশন করি, এখানে আমাদের বিভিন্ন রকমের ইস্যু যেগুলো হয়, সেগুলো আমরা আলাপ করি, এটা রুটিন বিষয় এবং সেগুলো আছে।

রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার মনে হয় না। ওটাতে রাজনীতি খুব কম আলোচনা হয়। রাজনৈতিক আলোচনাতো হয়েই গেছে আমাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *